শাশুড়িকে ৬ টুকরো করে মাটিচাপা দেন পুত্রবধূ রাশেদা | todaybd24.com
রবিবার , ১৭ জুলাই ২০২২ | ২৩শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯
  1. অন্যান্য
  2. আন্তর্জাতিক
  3. আয় করুন
  4. আলোচিত সংবাদ
  5. খুলনা
  6. খেলাধুলা
  7. চট্টগ্রাম
  8. জাতীয়
  9. জেলার খবর
  10. টিপস
  11. ঢাকা
  12. তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি
  13. ধর্ম
  14. নিউজ
  15. পরিবার
esenler korsan taksi
সর্বশেষ খবর টুডে বিডি ২৪ গুগল নিউজ চ্যানেলে।
   

শাশুড়িকে ৬ টুকরো করে মাটিচাপা দেন পুত্রবধূ রাশেদা

                                           প্রতিবেদক
টুডে বিডি ২৪
জুলাই ১৭, ২০২২ ১১:৫৩ অপরাহ্ন

Advertisements

কক্সবাজারের রামু উপজেলার উমখালীর মিঠাছড়ি হাজির পাড়ায় শাশুড়িকে হত্যার পর বাড়ির আঙিনায় মাটিচাপা দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। নিহতের নাম মমতাজ বেগম (৬০)।
এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নিহতের পুত্রবধূকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত মমতাজ বেগম (৬০) রামুর দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নের উমখালী হাজিপাড়া মৃত গোলাম কবিরের স্ত্রী। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে আটক রাশেদা বেগম (২২) নিহতের ছেলে মোহাম্মদ আলমগীরের স্ত্রী।

Advertisements
Advertisements
Advertisements

রোববার (১৭ জুলাই) দুপুরে নিহতের ছেলে বাড়ির পাশে টিউবওয়েলে গেলে পাশে নতুন খোঁড়া মাটি দেখতে পান। সেই সঙ্গে অল্প মাটি খুঁড়েই তার মায়ের শাড়ি দেখে স্থানীয়দের জানায়। পরে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দিলে রামু থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে মাটিচাপা অবস্থায় মমতাজ বেগমের মরদেহ উদ্ধার করে।

Advertisements
Advertisements
Advertisements

রামু থানার ওসি মো. আনোয়ারুল হোসাইন জানান, রোববার সন্ধ্যায় রামু উপজেলার দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নের উমখালী হাজিপাড়া থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয়দের বরাতে আনোয়ারুল বলেন, শাশুড়ি মমতাজ বেগমের সঙ্গে পুত্রবধূ রাশেদা বেগমের দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায় সময় ঝগড়া লেগেই থাকত। মমতাজ বেগমের ছেলে মোহাম্মদ আলমগীর কক্সবাজার শহরের হোটেল-মোটেল জোন এলাকার একটি আবাসিক হোটেলে চাকরি করেন। গত বুধবার বিকেলে আলমগীর চাকরিতে যান। তিনি রাতে বাড়িতে ফিরেননি।

আরও পড়ুন:  ‘গণস্বাস্থ্যের কাছে ২ কোটি ৪০ লাখ টাকা কর দাবি অযৌক্তিক’

নিহতের স্বজন ও স্থানীয়রা জানায়, শনিবার সন্ধ্যার পর থেকে মমতাজ বেগমের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে স্বজনরা বিভিন্ন স্থানে খোঁজ-খবর নিলেও তার সন্ধান পাননি। এ ব্যাপারে তারা বিষয়টি মোবাইলে মোহাম্মদ আলমগীরকে অবহিত করেন।

ওসি বলেন, রোববার সকালে চাকরি থেকে ফিরে মোহাম্মদ আলমগীরও বিভিন্ন স্থানে মায়ের খোঁজ নিয়ে সন্ধান পাননি। একপর্যায়ে তার স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদে কথাবার্তায় অসংলগ্নতা পেলে সন্দেহ জাগে। এরপর তিনি বসতভিটার বিভিন্ন জায়গায় সন্ধান করতে থাকেন।

একপর্যায়ে বাড়ির নলকূপের পাশে নতুন খনন করা মাটির স্তুপে রক্তের দাগ দেখতে পান। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় মাটি খুঁড়ে মমতাজ বেগমের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে, শনিবার সন্ধ্যার পর পুত্রবধূ রাশেদা বেগম শাশুড়িকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে।

নিহতের ছেলে মোহাম্মদ আলমগীর জানান, মরদেহটির মাথা, দুই হাত ও দুই পা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন (৬ টুকরো) অবস্থায় পাওয়া গেছে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুত্রবধূ রাশেদা বেগমকে পুলিশ আটক করেছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

সর্বশেষ - রাজনীতি

//woafoame.net/4/5519413
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
izmit escort kadıköy escort ataşehir escort rize escort uşak escort amasya escort samsun escort ankara escort diyarbakır escort
sincan evden eve nakliyat