পাঁচ বছর প্রেম করে বিয়ের আট বছর পর স্ত্রীকে গলাটিপে হত্যা | todaybd24.com
মঙ্গলবার , ১৭ মে ২০২২ | ২৩শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯
  1. অন্যান্য
  2. আন্তর্জাতিক
  3. আয় করুন
  4. আলোচিত সংবাদ
  5. খুলনা
  6. খেলাধুলা
  7. চট্টগ্রাম
  8. জাতীয়
  9. জেলার খবর
  10. টিপস
  11. ঢাকা
  12. তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি
  13. ধর্ম
  14. নিউজ
  15. পরিবার
esenler korsan taksi
সর্বশেষ খবর টুডে বিডি ২৪ গুগল নিউজ চ্যানেলে।
   

পাঁচ বছর প্রেম করে বিয়ের আট বছর পর স্ত্রীকে গলাটিপে হত্যা

                                           প্রতিবেদক
News Desk
মে ১৭, ২০২২ ১২:৫৪ পূর্বাহ্ন

Advertisements

পাঁচ বছর প্রেম করে বিয়ের আট বছর পর স্ত্রীকে গলাটিপে হত্যা করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার নাটক মঞ্চস্থ করেছিলেন স্বামী সোহেল রানা (২৭)। গাজীপুর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) তদন্তে এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন এবং স্বামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Advertisements
Advertisements
Advertisements

গ্রেফতারকৃত সোহেল রানা দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ থানার শিবপুর গ্রামের কোহিনুরের ছেলে। সোহেল গাজীপুর সদর জয়দেবপুর থানাধীন ভবানীপুর এলাকায় স্ত্রী বৃষ্টি খাতুন (২৪) ও এক ছেলে মো. ফাহিম প্রামাণিককে (৪) নিয়ে ভাড়া থাকতেন।মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআই এর এসআই মনিরুজ্জামান জানান, ৫ বছর প্রেম করে ২০১২ সালে বৃষ্টি খাতুনকে বিয়ে করে মো. সোহেল রানা। বিয়ের পর তাদের দাম্পত্য জীবনে কোন ঝগড়া-বিবাদ বা কলহ ছিল না। সম্প্রতি সোহেল রানার পিতা ও মাতার ইন্ধনে পুত্রবধূ বৃষ্টি খাতুনকে শারীরিক ও মানসিকভাবে অত্যাচার নির্যাতন করে আসছিল এবং কারণে অকারণে আত্মহত্যা করার জন্য প্ররোচিত করত।

Advertisements
Advertisements
Advertisements

একপর্যায়ে ২০২০ সালের ৭ আগস্ট জয়দেবপুরের দক্ষিণ নয়াপাড়া এলাকার জনৈক মো. মিজানুর রহমান মজনু মিয়ার বাড়িতে তার ভাড়া ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগানো লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় জয়দেবপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হলে থানার পুলিশ এ মামলায় কাউকে গ্রেফতার না করে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয়। পরে আদালতের নির্দেশে পিবিআই মামলাটির তদন্ত শুরু করে। পরে গত ১৪ মে পিবিআই নিহতের স্বামী সোহেল রানাকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে।

আরও পড়ুন:  পাচারকালে পাহাড়ি ময়নার ছানা উদ্ধার

গ্রেফতারকৃত আসামি সোহেল রানাকে জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিভিন্ন সময় ঝগড়া বিবাদ হতো। ঘটনার ৬ দিন আগে ঈদের ছুটিতে আসামি সোহেল ও তার স্ত্রী সন্তানসহ শ্বশুরবাড়িতে ঈদ করতে যায়। ঈদ শেষে সন্তানকে শ্বশুরবাড়িতে রেখে স্বামী-স্ত্রী দুইজন কর্মস্থলে চলে আসে। সকাল ১০টার দিকে স্ত্রীর কাপড় ধোয়া নিয়ে দুজনের কথা কাটাকাটি এবং ধস্তাধস্তি হয়।

একপর্যায়ে সোহেল রানা বৃষ্টিকে গলা চেপে ধরে রাখে। কিছু সময় পরে বৃষ্টির শরীর নিস্তেজ হয়ে যায়। পরবর্তীতে স্বামী সোহেল রানা বিষয়টিকে আত্মহত্যায় রূপান্তরিত করার জন্য স্ত্রীর গলায় ওড়না বেঁধে বারান্দার আড়ার সঙ্গে টানিয়ে দেয়। এরপর কৌশলে বারান্দা ও বেড রুমের দরজা বন্ধ করে ঘরের চালের সিলিং ফাঁকা করে বেড রুমে গিয়ে চিৎকার শুরু করে। পরে সোহেলের ডাকাচিৎকারে আশপাশের লোকজন আসে এবং বারান্দার রুম থেকে বৃষ্টিকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পিবিআই পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান জানান, গ্রেফতারকৃত সোহেল রোববার গাজীপুর আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে।

সর্বশেষ - রাজনীতি

//thaudray.com/4/5519413
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
izmit escort kadıköy escort ataşehir escort rize escort uşak escort amasya escort samsun escort ankara escort diyarbakır escort
sincan evden eve nakliyat